সততার সাথে - সততার পথে

হাফিজ সইদকে সাড়ে ৫ বছরের সাজা শোনাল পাক আদালত

পাকিস্তান আদালতে সন্ত্রাসে অর্থ জোগানোর দায়ে দোষী সাব্যস্ত হলেন জামাত-উদ-দাওয়া প্রধান হাফিজ সইদ। বুধবার তাঁকে সাড়ে ৫ বছরের সাজা শুনিয়েছে পাক আদালত। এই প্রথম সে দেশের কোনও আদালত তাঁকে দোষী সাব্যস্ত করল।

দু’দিন বাদেই প্যারিসে সন্ত্রাসে আর্থিক জোগানের উপর নজরদারি চালানো আন্তর্জাতিক সংস্থা ফাইনান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্স (এফ এ টি এফ) গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক রয়েছে। জঙ্গিদের আর্থিক মদত দেওয়া বন্ধ করার ব্যাপারে নির্দেশিত পদক্ষেপগুলি করতে না পারলে পাকিস্তানকে কালো তালিকাভুক্ত করার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে ইতিমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছে। তার আগেই হাফিজকে সাজা শোনাল পাক আদালত।

কারাদণ্ডের পাশাপাশি হাফিজ সইদকে ১৫,০০০ টাকা জারিমানও করেছে আদালত। পাকিস্তানের সন্ত্রাস দমন আইনের ১১ এফ ধারায় এই ঘোষণা করা হয়।  বুধবার ওই সাজা ঘোষণা করেন বিচারপতি আরশাদ হুসেন ভাট্টা।

রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ মুম্বই হামলার প্রধান কারিগর ও  লস্কর-ই-তৈবার প্রতিষ্ঠাতা হাফিজ সইদেকে আন্তর্জাতিক জঙ্গির তকমা দিয়েছে। ২০০৮ সালে মুম্বইয়ে জঙ্গি হামলায় ১৬৬ জনের মৃত্যু হয়। ভারত পাকিস্তানকে বহু তথ্যপ্রমাণ দিলেও পাক সরকার কোনও ব্যবস্থা নেয়নি। বহাল তবিয়তেই নিজের কাজ চালিয়ে যাচ্ছিল সইদ। এই জঙ্গি নেতা সামাজিক সেবা প্রতিষ্ঠান খুলে চাঁদাও তুলছিল ।

জঙ্গিদমন আদালেত পাক পুলিস চার্জশিট দেবার পর শুনানি শুরু হয় ৩০ নভেম্বর। ডিসেম্বর মাসের ১৬ তারিখ থেকে শুনানি শুরু হয় ও শুনানি শেষ হয় গত ৬ ফেব্রুয়ারি। লাহৌরের একটি আদালত হাফিজকে দু’দফায় দোষী সাব্যস্ত করেছে। ছ’মাসের কারাদণ্ড শোনানো হয় নিষিদ্ধ সন্ত্রাসী সংগঠনের সদস্য হওয়ার জন্য আর বেআইনি সম্পত্তির মালিকানার জন্য সাজা হয় পাঁচ বছরের।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

উত্তর দিন

Your email address will not be published.