সততার সাথে - সততার পথে

দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার ব্যাপক এলাকাজুড়ে সংক্রমণের ঘটনা সামনে এলো – নতুন আক্রান্ত ১৯৭ জন

গত ২৪ ঘন্টায় দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায় করোনার রেকর্ড সংক্রমণের ঘটনা সামনে এলো। জেলায় ১৯৭ জনের শরীরে করোনা সংক্রমনের রিপোর্ট এসেছে। ব্যাপক এলাকাজুড়ে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছে।

স্বাস্থ্য দপ্তরের খবর অনুসারে এ মাসের ১১, ১২ এবং ১৩ তারিখে এই সংক্রমিত মানুষদের লালার নমুনা নিয়ে মালদা মেডিক্যাল কলেজের ভিআরডিএলে পাঠানো হয়েছিল।

বালুরঘাটের শহরাঞ্চলের নারায়নপুর বাসস্ট্যান্ড, গীতাঞ্জলি পাড়া, উত্তর চকভাবানী, দক্ষিণ চকভবানী, আর্যসমিতি পাড়া, কংগ্রেস পাড়া, নেপালি পাড়া এলাকায় সংক্রমিতদের বাড়ি। এছাড়াও বালুরঘাট ব্লক অঞ্চলের গঙ্গাসাগর, ফুলঘরা, পন্ডিতপুর, রাধানগর, গোপিনগর, চিঙ্গিশপুর, চককাশি, রঘুনাথপুরেও কিছু সংক্রমিতদের বাড়ি বলে জানা গেছে।

দক্ষিণ দিনাজপুরের গ্রামপঞ্চায়েত এলাকাগুলির মধ্যে হিলির বিনসিরা গ্রামপঞ্চায়েত, বংশীহারী বল্লভপুর গ্রামপঞ্চায়েত, দৌলতপুরে রামকৃষ্ণপুর গ্রাম পঞ্চায়েত, মোহনা গ্রামপঞ্চায়েত, জাকিরপুর গ্রামপঞ্চায়েত, সমঝিয়া গ্রামপঞ্চায়েত, সাফানগর গ্রামপঞ্চায়েত এলাকাতে নতুন আক্রান্তের সন্ধান মিলেছে। কুসুমন্ডি ব্লকের চাকদাপাড়া, বটেশ্বর, কদমপুরি, নন্দপুকুর, মকর; হরিরামপুর ব্লকের বৈরহাট্টা, শিরশি ও গোকর্ণ গ্রাম পঞ্চায়েতের বিভিন্ন এলাকা; বুনিয়াদপুরের সেলিমবাদে; কুমারগঞ্জের এক বিএসএফ কর্মী আক্রান্ত হয়েছেন। বাদ যাননি গঙ্গারামপুর ব্লকের মানুষজনও।

জেলায় সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হয়েছেন তখন ব্লকের লস্করহাট এলাকায়। এর আগেও তপনে বহু মানুষ আক্রান্ত হয়েছিলেন, এবার লস্করহাট এলাকায় প্রায় ৫০ জন বাসিন্দা একসাথে আক্রান্ত হবার খবর এসেছে। এছাড়াও সালাস, তিলন, কড়দহ, দাউদপুর, জামালপুর ইত্যাদি এলাকাতেও মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তথ্য অনুযায়ী নতুন সংক্রমিতদের অধিকাংশেরই কোন ট্রাভেল হিস্ট্রি ছিল না তবে অনেকেরই উপসর্গ দেখা গিয়েছিল। আজকের নতুন ১৯৭ জন আক্রান্ত নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২২৯৫।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

উত্তর দিন

Your email address will not be published.