সততার সাথে - সততার পথে

৩ সন্তানকে নদীতে ছুড়ে ফেলে আত্মঘাতী বাবা

ছত্রিশগড়ের রায়গড় জেলার ঘটে গেল এক মর্মান্তিক আত্মহত্যার ঘটনা। সেতু থেকে তিন সন্তানকে নদীর জলে ছুড়ে নিজেও ঝাঁপ দিল বাবা। পুলিসের কথা অনুযায়ী পারিবারিক দ্বন্দ্বই এই ঘটনার জন্য দায়ী। পারিবারিক দ্বন্দ্বের জন্যই হয়তো মানসিক অবসাদে ভুগে ওই ব্যক্তি এরকম চরম সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছিল। যে ব্যক্তি তিন সন্তানের সলিল সমাধি দিয়ে নিজেও মান্দের নদীতে ঝাঁপ দিয়েছে তাঁর নাম কার্তিকেশ্বর রথিয়া। সে এদু গ্রামের বাসিন্দা। 

সঙ্গে সঙ্গে জলের তলায় তল্লাশি চালানোর ব্যবস্থা করা হলেও ভারী বৃষ্টির কারণে ব্যাহত হয়।  রায়গড় পুলিসের এসপি সন্তোষ সিং জানিয়েছেন, মান্দ নদীর ব্রিজ থেকেই সাত সকালে এই ঘটনা ঘটেছে। কার্তিকেশ্বর রথিয়া তিন সন্তানকে নিয়ে সেতুর উপর এসে হঠাৎই মোটর সাইকেল বন্ধ করে দেয়। ওই তিন সন্তানের সবারই বয়স ছিল নগণ্য। শিশুদের একজনের বয়স ৫ বছর, একজনের ৩ বছর এবং সবচেয়ে ছোটো ৮ মাসের। একে একে ছেলেদের জলে ছুড়ে নিজেও লাফ দেয়।

পুলিস ডুবুরি নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছলেও কোনও দেহ খুঁজে বের করতে পারেনি। দক্ষিণ পূর্ব কোলফিল্ডস লিমিটেডের বিদ্যুৎ শাখার কর্মী ছিল রথিয়া। পুলিস এই ঘটনার তদন্ত চালাচ্ছে।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

উত্তর দিন

Your email address will not be published.